সোমবার,  ২৩ এপ্রিল ২০১৮  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ১৯ জুলাই ২০১৬, ১০:২১:৫১

নিখোঁজদের নিয়েই এখন যত ভয়

সাম্প্রতিক দেশকাল প্রতিবেদক
আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে এখন নিখোঁজ তরুণরাই সবচেয়ে বড় আতঙ্ক৷ ধারণা করা হচ্ছে, এই তরুণদের বড় একটি অংশ জঙ্গি গ্রুপে যোগ দিয়েছে৷ গুলশান হামলায় নিহত পাঁচ জঙ্গির পরিচয় প্রকাশ হলে জানা যায়, তারা অনেকদিন ধরেই নিখোঁজ ছিল৷
 
এরইমধ্যে পুলিশ ও ব়্যাবের পক্ষ থেকে দুই দফায় মোট ১৭ জন নিখোঁজের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে৷ রোববার রাতে সর্বশেষ যে সাতজনের তালিকা প্রকাশ করা হয়, তাদের মধ্যে একই পরিবারের পাঁজন সদস্য রয়েছেন৷ তিনজন নারীও আছেন সেই তালিকায়৷
 
ব়্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেছেন, ইতোমধ্যে আমরা কিছু মিসিং ইয়ংদের খবর পেয়েছি যারা দীর্ঘদিন ধরে মিসিং ছিল৷ তাদের কেউ কেউ ইতোমধ্যে আত্মপ্রকাশ করেছে জঙ্গি হিসেবে৷
 
পুলিশ রোববার যে সাতজন নিখোঁজের তালিকা প্রকাশ করেছে তারা হলো- বনানীর তাওসীফ হোসেন, খিলগাঁও চৌধুরীরপাড়ার ডা. রোকনুদ্দীন খন্দকার, তার স্ত্রী নাইমা আক্তার, রোকনুদ্দীন খন্দকারের দুই মেয়ে রেজওয়ানা রোকন ও রামিতা রোকন, ছেলে সাদ কায়েস এবং সেজাদ রউফ ওরফে অর্ক ওরফে মরক্কো৷
 
এদের মধ্যে একই পরিবারের রয়েছেন পাঁচ জন৷ স্বামী-স্ত্রী ও তাদের দুই মেয়ে ও এক ছেলে৷ গত বছর ও চলতি বছরের বিভিন্ন সময়ে এরা স্বেচ্ছায় নিখোঁজ হয়েছেন বলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীরসদস্যরা জানতে পেরেছে৷
 
আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তালিকা ছাড়াও এখন দেশের প্রতিটি জেলা থেকেই নিখোঁজের খবর আসছে৷ নাটোরে গত ছয় মাসে ২৮ তরুণ নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে৷ তাদের সন্ধান চেয়ে জিডি করেছেন স্বজনরা৷ ঝিনাইদহে ১০ জনের নিখোঁজের খবর পাওয়া গেছে৷ পুলিশ জানায়, নিখোঁজদের বড় একটি অংশ তরুণ এবং কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বা মাদ্রাসার ছাত্র৷ তাদের বয়স ১৫ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে৷
 
আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধতন কর্মকর্তারা জানান, নিখোঁজ ব্যক্তিদের হন্যে হয়ে খোঁজা হচ্ছে৷ এরা যাতে দেশের বাইরে যেতে না পারে সেজন্য তাদের ছবি ও পাসপোর্ট নম্বর সকল ইমিগ্রেশন পয়েন্টে পাঠিয়ে দিয়ে সতর্কতা জারি করা হয়েছে৷
 
ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)-র উপ কমিশনার (মিডিয়া) মাসুদুর রহমান বলেন, আমরা আশঙ্কা করছি, নিখোঁজদের একাংশ জঙ্গি তত্‍পরতায় জড়িয়ে পড়েছে৷ তবে আমরা প্রত্যেকের ব্যাপারে গভীরভাবে তদন্ত করে দেখছি ৷ প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতেই তাদের ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে৷
 
তিনি আরো বলেন, গুলশান হামলার পর নিখোঁজদের একাংশের জঙ্গি তত্‍পরতায় জড়িত হওয়ার বিষয়টি আমাদের কাছে স্পষ্ট হয়৷
 
আরেক প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি-র উপ কমিশনার বলেন, থানায় করা জিডি এবং গোয়েন্দাদের মাধ্যমে নিখোঁজদের তালিকা সংগ্রহ করা হচ্ছে৷ যাচাই-বাছাই করেই আমরা সিদ্ধান্ত নিচ্ছি৷ তাই কেউ হয়রানির শিকার হওয়ার সুযোগ নেই৷ তারপরও কেউ হয়ারানির শিকার হলে এবং আমাদের কাছে অভিযোগ করলে আমরা ব্যবস্থা নেব৷
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com

close