বুধবার,  ২৪ জানুয়ারি ২০১৮  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ২৩ জুন ২০১৬, ১৬:২১:১৮

গাজীপুরে আইনজীবী হত্যায় ৫ জনের ফাঁসি

গাজীপুর প্রতিনিধি
গাজীপুরে এক আইনজীবীকে হত্যার দায়ে এক পরিবারের চারজনসহ পাঁচজনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছে আদালত।
 
শিক্ষানবিশ আইনজীবী ফিরোজ্জামান ওরফে সোহেলকে (২৮) আট বছর আগে হত্যা করা হয়েছিল।
 
বৃহস্পতিবার গাজীপুরের অতিরিক্ত দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক মো. ফজলে এলাহী ভূঁইয়া ওই মামলার রায় দেন।
 
দণ্ডিতরা হলেন- গাজীপুরের দক্ষিণ ছায়াবিথী এলাকার রফিকুল ইসলামের বাড়ির ভাড়াটিয়া আ. রউফের স্ত্রী আমেনা বেগম (৫৩), তার ছেলে মো. সজল (২৮), বাপ্পী (৩৩), তিথি (৩১) এবং একই এলাকার কফিল উদ্দিনের ছেলে মো. বাদল (৪২)।
 
রায়ে তাদের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানাও করেছেন বিচারক।
 
রায়ের সময় বাদল ও তিথি আদালতে ছিলেন। আমেনা, সজল ও বাপ্পী পলাতক বলে জানান এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এপিপি মো. আতাউর রহমান।
 
আমেনা ও তার সন্তানদের বাড়ি পটুয়াখালীর বাউফল থানার মধ্য মদনপুরা গ্রামে।
 
আইনজীবী সোহেলের পরিবার গাজীপুর জেলা শহরের রথখোলা এলাকায় ভাড়া থাকেন।
 
২০০৮ সালের ৯ মার্চ শিক্ষানবিশ আইনজীবী সোহেলকে দক্ষিণ ছায়াবিথী এলাকায় কুপিয়ে জখম করা হয়। পরদিন হাসপাতালে তার মৃত্যু ঘটে।
 
রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এপিপি মো. আতাউর রহমান সাংবাদিকদের জানান,এ ঘটনায় নিহতের বাবা মো. সোহরাব উদ্দিন ভাণ্ডারী বাদী হয়ে আটজনের নাম উল্লেখ করে জয়দেবপুর থানায় মামলা করেন।
 
জয়দেবপুর থানার এসআই মো. জাহিদুল ইসলাম তদন্ত শেষে ওই বছরের ১০ জুলাই আদালতে পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন।
 
এতে বলা হয়, আসামি তিথি আইনজীবী সোহেলের ছোট ভাই মাসুম পারভেজকে একদিন কুপিয়েছিলেন। ওই মামলায় তিথি গ্রেপ্তার হয়ে কিছুদিন কারাগারে ছিলেন। জামিনে মুক্তি পেয়ে তিথি আইনজীবী সোহেলের পরিবারকে বিভিন্ন রকমের হুমকি দিতে থাকেন।
 
“এক পর্যায়ে তিথির মা আমেনা বেগম বিষয়টি মীমাংসার কথা বলে সোহেলকে তাদের বাসায় ডেকে নেন। সোহেল গেলে আসামিরা তাকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কোপায়।”
এ সংক্রান্ত সকল খবর
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com

close