মঙ্গলবার,  ২১ আগস্ট ২০১৮  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ০৯ জুলাই ২০১৬, ১৬:২৩:২৭

বিচ্ছিন্নভাবে কলেজ সরকারিকরণের ঘোষণা জাতিকে হতাশ করেছে

সৈয়দ শাহাদাত হোসাইন
সারাদেশের স্কুল-কলেজগুলোর মধ্যে ৯৫ভাগ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বেসরকারি শিক্ষকদের বহু আন্দোলন সংগ্রামের পথ ধরে বর্তমান অর্জিত সুযোগ সুবিধার মধ্যে পে-স্কেলের শতভাগ বেতন ভাতা সরকার থেকে পেয়ে থাকেন। অন্যান্য ভাতার মধ্যে যেমন বাড়িভাড়া, মেডিকেল ভাতা এগুলো নাম মাত্র পেয়ে থাকেন।
 
সরকার ইচ্ছা করলে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অর্জিত আয় সরকারি কোষাগারে নিয়ে গিয়ে অন্যান্য সুযোগ সুবিধাগুলোর ব্যবস্থা করেন তাহলে সরকারেরই লাভ বেশি হয় এবং শিক্ষার ক্ষেত্রে বৈষম্য এবং বিশৃঙ্খলা অনেকাংশে দূর হতো।
 
রাজনীতিক বিবেচনায় গড়ে উঠা অনেক প্রতিষ্ঠান শর্ত পূরণ না করার পরেও তাড়াতাড়ি এমপিও হতে দেখা যায়, আবার এমনও দেখা যায় দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের অনেক প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির হাজারও শর্ত পূরণ করার পরেও এমপিওভুক্ত হতে অনেক সময় লেগে যায়। এমনিতেই এমপিওভুক্তি একটি সনাতনি এবং জঠিল পদ্বতি। এই পদ্বতিতে বেতন ভাতার আওতায় আসতে একটি প্রতিষ্ঠান কিংবা কোন শিক্ষককে কত ঘুষের টাকা লেনদেন করতে হয় এটা কারো অজানা থাকার কথা নয়।
 
এমনও দেখা দেখা যাবে এমপিওভুক্ত একই প্রতিষ্ঠানে সৃষ্ট পদ, শূন্য পদের এমপিওভুক্তির জন্য অনেক জঠিলতার সৃষ্টি হয় যা ভুক্তভোগী ছাড়া কেউ বুঝার কথা নয়। যেমন বর্তমানে আবশ্যিক বিষয়ের আইসিটি শিক্ষক, ডিগ্রি, অনার্সের জন্য নিয়োগকৃত শিক্ষক বছরের পর বছর শিক্ষকতা করছেন বিনা বেতনে। কর্তৃপক্ষের এই ব্যাপারে যেন বেখবর। বর্তমান বাজারে তাদের পরিবার সংসার নিয়ে কিভাবে দিন অতিবাহিত করছে তা ভাবতে অবাক লাগছে। তাদেরও ঈদ/পূজার মত উৎসব পালনের অধিকার রয়েছে কিন্তু খুশির দিনে হয়তো দেখা যাবে তাদের কাছে সব আনন্দ যেন মাটি হয়ে গেল।
 
পৃথিবীর অনেক দেশে শিক্ষকদের মর্যাদা সুরক্ষিত রয়েছে সে সব দেশে মেধাবীরাই শিক্ষকতার পেশায় আসেন। বিশ্বের অনেক দেশে শিক্ষকদের ভিআইপি মর্যাদা দেয়া হয়। এমনও দেশ আছে শিক্ষকদের প্রশাসন গ্রেপ্তার করতে চাইলে আদালতের অনুমতি নিতে হয়। আবার পৃথিবীর এমনও দেশ আছে কোন শিক্ষক বিচারপ্রার্থী হয়ে আদালতে গেলে সেখানে তার জন্য চেয়ার বরাদ্দ দেয়া হয়। আর আমাদের দেশে শুধু ছাত্রদের সালাম পেয়ে সারা জীবন তুষ্ট থাকতে হয়। নাই কোন সম্মানজনক বাড়ি ভাড়া, নেই কোন প্রমোশন। সরকারের মাত্র পাঁচশত টাকা বাড়ি ভাড়া দিয়ে এমপিও শিক্ষক বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের কোথাও পরিবার পরিজন নিয়ে একদিনের বেশি ভাড়া বাসায় থাকতে পারবেন কিনা সে প্রশ্নটি প্রিয় পাঠক আপনাদের সবিনয়ে রেখে গেলাম। এটি এমপিও শিক্ষকদের সাথে একধরনের রসিকতা ছাড়া আর কিছুই নয়। ভিক্ষুকের মত বার বার রাজপথে আন্দোলনের মাধ্যমে তাদের অধিকারগুলো আদায় করে এই পর্যায়ে আসা। যদি সরকার শিক্ষকতার এই মহান পেশার মর্যাদাকে সুরক্ষিত করতে চান তাহলে শিক্ষাকে জাতীয়করণের পথ ছাড়া কোন বিকল্প পথ নেই।
 
দেশের সকল বেসরকারি শিক্ষকদের প্রাণের দাবি শিক্ষা জাতীয়করণ। সরকার এই দাবিকে পাশ কাটিয়ে বিচ্ছিন্ন কিছু প্রতিষ্ঠান সরকারিকরণ জাতিকে হতাশ করেছে। আমাদের আশা ভরসার শেষ আশ্রয়স্থল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার শিক্ষা ও শিক্ষকবান্ধব সরকার তার মর্ম উপলদ্ধি করে শিক্ষাকে জাতীয়করণের পথে নিয়ে গিয়ে শিক্ষকতার মত মহান পেশার মর্যাদা সুরক্ষিত করবেন এবং এই পেশায় মেধাবীদের বিচরণ করার সুযোগ করে দিবেন।
 
লেখক: সৈয়দ শাহাদাত হোসাইন
সহকারি অধ্যাপক
বাকলিয়া শহিদ এনএমএমজে ডিগ্রি কলেজ, চট্টগ্রাম।
 
এ সংক্রান্ত সকল খবর
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com

close