মঙ্গলবার,  ১৭ জুলাই ২০১৮  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ২১ জুন ২০১৬, ১৬:৩১:২৮

টাকা উত্তোলন ও পরিবহনে পুলিশি সেবা পাবেন যেভাবে...

অনলাইন ডেস্ক
ঈদ প্রায় আসন্ন। এ সময় প্রতিটি ব্যাংক ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অর্থ লেনদেনের চাহিদা বেড়ে যায়। আর এ সুযোগের অপেক্ষায় থাকে এক চক্র। তারা সুযোগ বুঝে টার্গেটকৃত ব্যক্তিকে অনুসরণ করে টাকা ছিনতাই সহ সর্বস্ব লুটে নেয়। কিন্তু আপনি একটু সচেতন হলে আপনি ও আপনার অর্থ নিরাপদ থাকতে পারে। চলুন প্রথমে দু’টি ঘটনা জেনে নেই।
 
ঘটনা-১
২০১৫ সালের অক্টোবরের ১৯ তারিখ, রাজধানী পুরান ঢাকার তাঁতীবাজারে এক স্বর্ণের দোকানের কর্মচারীকে গুলি করে ২৫ লাখ টাকা ছিনতাই করে দুর্বৃত্তরা।  পার্থ কুমার (৪০) নামে ওই কর্মীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। স্থানীয়রা জানান, তাঁতীবাজারের ‘স্বাদ জুয়েলার্সের কর্মচারী পার্থ বিকালে ইসলামপুরে আল-আরাফা ইসলামী ব্যাংক থেকে ২৫ লাখ টাকা তোলেন। এরপর তিনি পায়ে হেঁটে দোকানের দিকে যাচ্ছিলেন। তিনি তাঁতীবাজারে দোকানের কাছাকাছি পৌঁছালে কয়েকজন ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন। এসময় তার কাছ থেকে টাকাগুলো ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে ছিনতাইকারীরা। একপর্যায়ে তার পায়ে গুলি করে টাকার ব্যাগ নিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা।
 
ঘটনা-২
চলতি বছরের এপ্রিল মাসের ২৪ তারিখ, রাজধানীর মিরপুরে কমার্স কলেজের পাশে আজিজুল হাকিম (২৮) নামে এক বিকাশকর্মীকে গুলি করে তার কাছে থাকা ৫-৬ লাখ টাকা ছিনতাই হওয়ার অভিযোগ ওঠে। গুলিতে আজিজুল মারাত্মকভাবে আহত হন। শুভ্র ট্রেডের ম্যানেজার জামিল হোসেন জানান, আজিজুল মিরপুর কমার্স কলেজ এলাকায় বিকাশের টাকা তুলতে যায়। টাকা তোলার সময় একটি মোটরসাইকেলে একজন এবং পাশের দোকানে থাকা আরও দু’জন তার গতিরোধ করে এবং হাতে থাকা ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।
 
উপরের ঘটনা দু’টি অত্যন্ত দুঃখজনক হলেও ঘটনাগুলোতে দেখা যাচ্ছে টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে মূলতঃ অসেচতনতা ও অসাবধানতার জন্যই। আপনি ব্যাংক থেকে এতোগুলো টাকা তুলবেন কিন্তু সাথে কাউকে রাখবেন না অথবা পুলিশের সহযোগীতা নিবেন না তা কি বুদ্ধিমানের কাজ? ব্যাংক থেকে টাকা তোলার সময় অথবা টাকা তোলে বহন করে নিয়ে যাওয়ার সময় অবশ্যই আপনাকে নিজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি আপনজন, বিশ্বস্থ বন্ধু বা আপনার অফিসের কাউকে সাথে নিয়ে এ কাজটি করবেন। আর সবচে ভাল  হয় আপনি যদি পুলিশি সহযোগীতা নেন। এক্ষেত্রে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ দিচ্ছে বিশেষ মানি এস্কর্ট সেবা অর্থাৎ টাকা উত্তোলন ও বহনের ক্ষেত্রে পুলিশ আপনাকে সর্বাত্মক সহযোগীতা করবে।
 
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে সহায়তা পাবেন যেভাবে:
কোন ব্যক্তি,সংস্থা, ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান অর্থ স্থানান্তরের জন্য পুলিশের সহায়তা প্রয়োজন মনে করলে সংশ্লিষ্ট থানায় যোগাযোগ করবে। থানা অপারগ হলে পুলিশ এস্কর্ট প্রত্যাশী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে লিখিত আবেদনের মাধ্যমে আব্দুল গণি রোডস্থ ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কন্ট্রোলরুমে গাড়ি পাঠালে মানি এস্কর্টে পুলিশি সহায়তা পাওয়া যাবে।
 
কন্ট্রোলরুমের নাম্বার সমূহ নিম্নরুপঃ
ফোনঃ  ০১৭১৩৩৭৩১১৯, ০১৭১৩৩৯৮৩১১, ৯৫৫৭১১৮৮, ৯৫১৪৪০০, ৯৫৫৯৯৩৩
 
১.    বড় অংকের অর্থ একা বহন করবেন না। সাথে অতিরিক্ত একাধিক বিশ্বস্ত ব্যক্তিকে সাথে রাখুন। আপনার অর্থ বহন সংক্রান্তে কোন তথ্য আগেই অন্যকে জানানো থেকে বিরত থাকুন।
২.    পায়ে হেঁটে কিংবা রিকশায় অর্থ বহনের পরিবর্তে মোটর সাইকেল কিংবা গাড়িতে অর্থ বহন করুন।
৩.    নগদ অর্থ বহনের পূর্বে নিশ্চিত হন যেন আপনার দোকান বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কেউ দুষ্কৃতিকারীদের না জানিয়ে দেয়।
৪.    দৈনিক নগদ অর্থ বহনের প্রয়োজন হলে মাঝে মাঝে ভিন্ন পথ ব্যবহার করুন যেন দুষ্কৃতিকারীরা পূর্বেই ওত পেতে থাকার সুবিধা দিতে না পারে।
৫.    অর্থ বহনের সময় ব্যাগ এমনভাবে ব্যবহার করুন যেন বাইরে থেকে বোঝা না যায়। এতে দুষ্কৃতিকারীরা প্রলুদ্ধ হওয়ার সুযোগ পাবে না।
৬.    বড় নোট ব্যবহারে সচেষ্ট হন এবং সম্ভব হলে টাকার নম্বর লিখে রাখুন।
৭.    সকল টাকা এক সাথে না রেখে বিভিন্ন জায়গায় যেমন, পকেটে, ব্যাগে, সঙ্গীয় ব্যক্তির নিকট রাখুন।
৮.    গলি পথ কিংবা নির্জন পথ ব্যবহারের পরিবর্তে অপেক্ষাকৃত ব্যস্ত সড়ক ব্যবহার করুন।
৯.    ট্রাফিক সিগন্যাল বা জ্যামে পড়লে অতিরিক্ত সর্তক থাকুন।
১০.    সিসি ক্যামেরা আছে এমন ব্যাংকের সাথে লেনদেন করুন। ব্যাংক থেকে বের হওয়ার পর বুঝতে চেষ্টা করুন সন্দেহজনক কেউ আপনাকে অনুসরণ করছে কি-না।  প্রয়োজনে স্থানীয় পুলিশকে বিষয়টি অবগত করুন।
১১.    বড় অংকের অর্থ পরিবহনের কাজটি রাতে না করে দিনের বেলায়  সম্পন্ন করার চেষ্টা করুন।
১২.    এটিএম বুথে টাকা তুলতে গেলে বুথের  ভেতরে কেউ আছে কিনা নিশ্চিত হয়ে নিন। কেউ থাকলে তিনি বের হবার পর আপনি বুথে প্রবেশ করুন।
১৩.    এটিএম বুথের অভ্যন্তরে থাকা কোন গোপন ক্যামেরায় আপনার আর্থিক লেনদেনে ব্যবহৃত গোপন নম্বরটি ধারণ করা হচ্ছে কিনা সে বিষয়ে সর্তক থাকুন।
১৪.    এক ব্যাংক থেকে অন্য ব্যাংকে টাকা ট্রান্সফার এর কাজটি চেকের মাধ্যমে সম্পন্ন করুন।
১৫.    বড় অংকের টাকা পরিবহনে পুলিশ এসকর্ট ব্যবহার করুন (০১৭১৩-৩৯৮৩১১)।
 
এ সংক্রান্ত সকল খবর
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com

close