সোমবার,  ১০ ডিসেম্বর ২০১৮  | সময় লোডিং...
প্রকাশ : ১১ জুলাই ২০১৬, ১৩:০৭:৩৮

শায়েস্তাগঞ্জে হোটেলে আপত্তিকর অবস্থায় ৪ যুগল আটক

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি
শায়েস্তাগঞ্জের সিরাজী হোটেল এখন যুবক-যুবতীদের অবৈধ কাজের অগ্ররাজ্যে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিনই হোটেলে চলছে রমরমা দেহ ব্যবসা। সাধারণ জনগণের চোখে ফাকি দিয়ে অবৈধ ব্যবসা চালিয়ে আগুল ফুলে কলাগাছ বনে যাচ্ছেন হোটেলের মালিক।
 
দাউদনগর বাজারে অবস্থিত সিরাজী হোটেল ব্যবসা এখন দেহ ব্যবসা নামেই পরিচিত। যে কোন সময় পুলিশ হানা দিলেই অবৈধ কাজে লিপ্ত থাকা অবস্থায় জোড়ায় জোড়ায় যুবক-যুবতী আটক করে।
 
রোববার রাত দেড় টায় ৪ জোড়া যুবক-যুবতীকে আটক করে শায়েস্তাগঞ্জ থানা পুলিশ।
 
এদিকে, ড্রাইভারবাজার এলাকার চেয়ারম্যান বোর্ডিং থেকে আপত্তিকর অবস্থায় আটক যুবক-যুবতী ও হোটেল ম্যানেজারকে বিভিন্ন মেয়াদে দণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত।
 
দণ্ডপ্রাপ্তরা হচ্ছে- বাহুবল উপজেলার ফতেহপুর গ্রামের জমির আলীর পুত্র মোতাচ্ছির আহমেদ (৩০) ও পাবনা জেলার হাতাইখুলাই উপজেলার আজিজ ভূঁইয়ার কন্যা রাশেদা খাতুন (২৫) ও সদর উপজেলার জগতপুর গ্রামের মৃত মওলা বকসের পুত্র ওই হোটেলের ম্যানেজার আব্দুস সামাদ।
 
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার দুপুর ১২টার দিকে শায়েস্তাগঞ্জ থানার এসআই আতিকুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ওই হোটেলের ১ নম্বর রোম থেকে আপত্তিকর অবস্থায় মোতাচ্ছির আহমেদ রাশেদা খাতুনকে আটক করে। এ সময় তাদেরকে হোটেলে অসামাজিক কাজে সুযোগ করে দেয়ার জন্য হোটেলের ম্যানেজার আব্দুস সামাদকেও আটক করা হয়। পরে দুপুর ৩টার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অমিতাভ পরাগ তালুকদারের আদালতে হাজির তাদেরকে হাজির করা হলে আদালত রাশেদা ও মোতাচ্ছিরকে ৭ দিন করে এবং ম্যানেজারকে ১০ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন। ওই দিনই তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।
 
এ ব্যাপারে শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি ইয়াসিনুল হকের সাথে যোগাযোগ করা হলে একাধিক হোটেলে অভিযান ও যুবক-যুবতিদের আটকের কথা স্বীকার করেছেন।  
এ সংক্রান্ত সকল খবর
এই পাতার আরো খবর
সর্বশেষ সংবাদসর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Powered by orangebd.com

close